বাদশা আলম, শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ বগুড়ার শেরপুরের ভবানীপুর বাজারের ব্রিজের উপর গত শুক্রবার দিবাগত রাতে চরমপন্থীরা তাদের অস্তিত্ব জানান দিতে দু’গ্রুপের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধে পূর্ববাংলা কমিউনিষ্ট পার্টির(সর্বহারা পার্টি) দুই সদস্য আফসার আলী (৪৫), লিটন মিয়া (৪০) নিহত হয়েছে। এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ২টি আগ্নেয়াস্ত্র (১টি পিস্তল, ১টি ওয়ান শুটার), ৮ রাউন্ড গুলি, ২টি চাপাতি এবং পূর্ব বাংলা কমিউনিস্ট পার্টি হাতে লেখা ৩টি পোষ্টার উদ্ধার করেছে।

এ ঘটনায় শনিবার সকালে বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, রাত অনুমান পৌণে ২টার দিকে শেরপুর উপজেলার ভবানীপুর বাজারের পূর্ব পাশের্^ ভবানীপুর-সীমাবাড়ি সড়কের ব্রীজের উপর চরমপন্থীদের অস্তিত্ব জানা দিতে দু’গ্রুপের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধ হয়। খবর পেয়ে শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হুমায়ুন কবীর ও পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) বুলবুল ইসলাম সঙ্গী ফোর্স নিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে সেখানে গুরুতর আহত অবস্থায় আফসার আলী ও লিটন মিয়াকে মাটিতে পড়ে থাকতে দেখেন। পরে তাদেরকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতদের মধ্যে একজন সিরাজগঞ্জ জেলার রায়গঞ্জ উপজেলার ধামাইনগর ইউনিয়নের অর্জুনি গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে লিটন মিয়া, অপরজন আফসার আলীর নাম পাওয়া গেলেও বিস্তারিত পরিচয় পাওয়া যায়নি। তবে নিহত দুজনই পূর্ববাংলা কমিউনিষ্ট পার্টি (সর্বহারা পার্টির) সদস্য বলে প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত হওয়া গেছে। এসময় ঘটনাস্থল থেকে ১টি পিস্তল, ১টি ওয়ান শুটার, ৮রাউন্ড গুলি, ২টি চাপাতি এবং পূর্ব বাংলা কমিউনিস্ট পার্টির হাতে লেখা ৩টি পোস্টার উদ্ধার হয়েছে।

উল্লেখ্য গত ৮ এপ্রিল রাত পৌনে বারোটার দিকে ভবানীপুর বাজার এলাকায় পূর্ববাংলা কমিউনিষ্ট পার্টি(সর্বহারা) দলের সদস্যরা তাদের দাবী-দাওয়া সম্বলিত পোস্টার লাগানোর সময় শেরপুর থানা পুলিশের উপ-সহকারি পুলিশ পরিদর্শক(এএসআই) নান্নু মিয়া বাধা দিলে সর্বহারা পার্টির সদস্যরা তার ডান পায়ে গুলি করে এবং পরবর্তীতে সেই পা কেটে ফেলা করা হয়েছে।