সেলিম হোসেন, সাতক্ষীরা প্রতিনিধি: সুন্দরবনে মাছ শিকারে গিয়ে ভাগ্য খুলেছে জেলে মঞ্জু গাজীর। ১২১টি মূল্যবান মেইদ মাছ বিক্রি করেছেন ৫ লাখ ৭০ হাজার টাকায়। মূল্যবান এ মাছ একত্রে ধরা পড়াকে বিষ্ময়কর বলছেন অন্য জেলেরা।

সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার মুন্সিগঞ্জ ইউনিয়নের হরিনগর গ্রামের ইমান আলী গাজীর ছেলে মঞ্জু গাজী বন বিভাগের অনুমতি নিয়ে কয়েকদিন আগে মাছ ধরতে সুন্দরবনে প্রবেশ করেন। সুন্দরবনের নদীতে মাছ ধরতে দুটি ফাঁস জাল ফেলেন তিনি। এতেই ধরা পড়ে ১২১টি মূল্যবান মেইদ মাছ। মঞ্জু গাজী আরোও জানান, দুইটি ফাঁস জালের মধ্যে একটিতে ১২১ টি মেইদ মাছ ধরা পড়ে। রোববার (২২ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় হরিনগর বাজারে বিক্রি করে দিয়েছি।

পাইকারী এক ক্রেতা ৫ লক্ষ ৭০ হাজার টাকায় মাছগুলো ক্রয় করেছেন। তিনি আরও বলেন, অন্য জালে প্রচুর মেইদ মাছ আটকা পড়ে কিন্তু জালটি আর পাইনি। ধারণা করছি, বেশী মাছ একত্রে বাঁধার কারণে জালটি টেনে নিয়ে গেছে মাছেরা। এই মাছ খুববেশী পাওয়া যায় না। ঝাঁক নিয়ে ঘুরে বেড়ায়। একটি জালে অল্প সংখ্যক ১২১টি ধরা পড়ার কারণে এগুলো ধরতে সক্ষম হয়েছি।

মুন্সিগজ্ঞ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কাশেম মোড়ল বলেন, সুন্দরবনের চুনকুড়ি নদীতে বর্তমানে মূল্যবান মেইদ মাছ ধরা পড়ছে। প্রতিদিনই জেলেরা ২-৩ লাখ টাকার মাছ এক সঙ্গে বিক্রি করছে। অনেককে আবার মাছ ধরতে গিয়ে খালি হাতেও ফিরতে হচ্ছে।