লালমনিরহাট প্রতিনিধি: লালমনিরহাটের ধরলা নদী থেকে উদ্ধার হওয়া অজ্ঞত মরদেহের পরিচয় সনাক্ত হয়েছে। মৃত শুভাশীষ রায়(৩৫) একজন ভারতীয় নাগরিক। শনিবার(১৮ জুলাই) দুপুরে পুলিশের পাঠানো ছবি দেখে তার ভাই ও পরিবারের স্বজনরা পরিচয় সনাক্ত করেছে।

এর আগে শুক্রবার(১৭ জুলাই) বিকেলে পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী ইউনিয়নের ঘাটেরপাড় এলাকায় ধরলা নদী থেকে অজ্ঞত হিসেবে তার মরদেহ উদ্ধার করে পাটগ্রাম থানা পুলিশ। মৃত শুভাশীষ রায় ভারতের জলপাইগুড়ি জেলার ময়নাগুড়ি থানার শুভাষনগর এলাকার মৃত গোপাল চন্দ্রের ছেলে।

মৃতের পরিবারের বরাত দিয়ে পাটগ্রাম থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) মোজাম্মেল হক জানান, গত ১৬ জুলাই স্থানীয় জর্দা নদীতে গোসল করতে নেমে নিখোঁজ হন শুভাশীষ রায়। এরপর ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরী দল অনেক খোঁজা খুঁজি করেও তার সন্ধান মেলাতে পারেননি।

স্থানীয়দের খবরে গত শুক্রবার (১৭ জুলাই) ভারতীয় সীমান্ত ঘেঁষা পাটগ্রাম উপজেলার ঘাটেরপাড় এলাকায় স্রোতে ভেসে আসা ধরলা নদী থেকে একটি মরদেহ উদ্ধার করে পাটগ্রাম থানা পুলিশ। পরে অজ্ঞত এ মরদেহ ভারতীয় সন্দেহে ধরলার উজানে ভারতীয় পুলিশের কাছে মরদেহের ছবি পাঠায় পাটগ্রাম থানা পুলিশ। সেই ছবি দেখে শুভাশীষের মরদেহ সনাক্ত করেন তার পরিবার।

শনিবার(১৮ জুলাই) বিকেলে ময়নাতদন্ত শেষে বডার গার্ড বাংলাদেশ(বিজিবি) ও ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর(বিএসএফ) উপস্থিতিতে ভারতীয় পুলিশের কাছে মৃত শুভাশীষ রায়ের মরদেহ হস্তান্তর করা হবে বলেও জানান ওসি মোজাম্মেল হক।