এ. এম. উবায়েদ, কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধিঃ কিশোরগঞ্জ সদরের রশিদাবাদে ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা (মিশুক) ছিনতাইয়ের চেষ্টায় চালক পরান মিয়া (১৮) কে নৃশংস ভাবে হত্যা করেছে ছিনতাইকারীরা। গতকাল মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) রাত ৮টায় কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার রশিদাবাদ বিশ্বরোড বেইলী ব্রীজ সংলগ্ন ভৈরব-কিশোরগঞ্জ আঞ্চলিক মহাসড়কে এই নৃশংস হত্যাকান্ডের ঘটনাটি ঘটে।

এই ঘটনায় মোঃ শরিফ (১৭) নামের এক ছিনতাইকারীকে স্থানীয়দের সহায়তায় আটক করেছে পুলিশ। নিহত পরান মিয়া সদর উপজেলার রশিদাবাদ ইউনিয়নের লতিবপুর ইদ্রিস আলীর ছেলে। আটককৃত ছিনতাইকারী শরীফ চট্টগ্রামের মোগলটুলী এলাকার আঃ সালামের ছেলে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে পরান ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা টি চালিয়ে কিশোরগঞ্জ শহরের বটতলা থেকে ৩ জন যাত্রী নিয়ে রশিদাবাদ বিশ্বরোড আসছিল।

এমন সময় রশিদাবাদ বিশ্বরোড বেইলী ব্রীজ সংলগ্ন মেইন রোডে পৌঁছালে নির্জন ফাঁকা রাস্তায় অটোরিকশার ভিতর যাত্রীবেশে থাকা ছিনতাইকারীরা হঠাৎ হামলা চালায় চালক পরান মিয়ার উপর। এতে চালক পরান মিয়া অটোরিকশা ছিনতাইয়ে বাঁধা দেওয়ায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলায় ঘাই মেরে গুরুতর জখম করে ছিনতাইকারীরা। পরানের চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে আসে। ততক্ষণে দুই ছিনতাইকারী অটোরিকশা টি রেখে পালিয়ে গেলেও ঘটনাস্থল থেকে পালানোর সময় শরীফ নামের এক ছিনতাইকারী কে স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় টহলরত পুলিশ আটক করে।

গুরুতর আহত পরানকে স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষনা করে। কিশোরগঞ্জ মডেল থানার অফিসার ইন চার্জ (ওসি) আবু বকর সিদ্দিক জানান, এ ঘটনার সাথে জড়িত শরীফ নামের এক ছিনতাইকারী কে স্থানীয়দের সহায়তায় আটক করে পুলিশ। পালিয়ে যাওয়া দুই ছিনতাইকারী কে গ্রেফতার করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

এই ব্যাপারে একটি হত্যা মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। নিহত পরানের লাশ ময়না তদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।