বাড়ি রাজনীতি খালেদা জিয়ার সঙ্গে ‘১ মিনিট’ দেখায় যে বার্তা দিলেন ফখরুল

খালেদা জিয়ার সঙ্গে ‘১ মিনিট’ দেখায় যে বার্তা দিলেন ফখরুল

নাইকো দুর্নীতি মামলায় অভিযোগ গঠনের শুনানি শেষে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের আদালতে গিয়েছিলেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

কিন্তু আদালত অনুমতি না দেয়ায় দেখা হয়নি মির্জা ফখরুলের সঙ্গে। আদালতে না হলেও খালেদা জিয়াকে আদালত থেকে বের করে নেওয়ার সময় ‘এক মিনিটে’র মতো কথা বলার সুযোগ পান বিএনপি মহাসচিব।

ওই ১ মিনিট সময়ের মধ্যেই খালেদা জিয়াকে সংলাপ বিষয়ে বার্তা দিতে পেরেছেন মির্জা ফখরুল বলে জানিয়েছেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক খালেদা জিয়ার এক আইনজীবী মির্জা ফখরুলের সঙ্গে আদালতে ১ মিনিট কথার সম্পর্কে জানান, ‘সংলাপের বিষয়ে ম্যাডাম খালেদা জিয়াকে যা বার্তা দেয়ার তা ১ মিনিটেই মির্জা ফখরুল ইসলাম দিয়ে দিয়েছেন।’

বৃহস্পতিবার খালেদা জিয়াকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতাল থেকে বেলা ১১টা ৪০ মিনিটে গাড়ীতে করে ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারে আনা হয়। সেখান থেকে সারাসরি তাকে কারাগারের ভিতরের আদালতে একটি হুইল চেয়ারে করে হাজির করা হয়। মামলার শুনানি চলার সময় দুপুর ১২টা ৩৫ মিনিটে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর আদালতে হাজির হন। তিনি আদালত কক্ষে ঢুকে একটি চেয়ারে বসে খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করার অপেক্ষায় থাকেন।

এরপর বেলা সোয়া ১টায় মামলার শুনানি শেষ হওয়ার পর খালেদা জিয়ার সঙ্গে আদালত কক্ষে ৩০ মিনিট মামলা সংক্রান্ত বিষয়ে কথা বলার অনুমতি চেয়ে বিচারকের কাছে আবেদন করেন আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া ও মির্জা ফখরুল।

অনুমতি বিষয়ে বিচারক বলেন, ‘এটা আমার এখতিয়ারের বাইরে। আপনারা দেখা করবেন না কি-করবেন এ বিষয়ে আমি কোন আদেশ দিতে পারব না। এ ছাড়া মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ মামলার কেউ না।’

বিচারক এমন বক্তব্যে খালেদা জিয়ার আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া বলেন, ‘তাহলে আমাকে একা অনুমতি দিন।’ তখন বিচারক বলেন, ‘এটাও আমি দিতে পারব না।’

তখন সানাউল্লাহ মিয়া বলেন, ‘এর আগে আমরা অন্যান্য আদালতে অনেকবারই দেখা করার অনুমতি পেয়েছি।’

উত্তরে বিচারক বলেন, ‘আইন আমাকে সুযোগ দেয়নি। আমি দিতে পারব না’

তবে মির্জা ফখরুল পুলিশ বেষ্টিত খালেদা জিয়ার সামনে যান এবং ১ মিনিটের মতো সময় কথা বলার সুযোগ পান। এরপরই খালেদা জিয়াকে আদালত কক্ষ থেকে বের করে কারাগারের ভেতরে নিয়ে যাওয়া হয়।

এ বিষয়ে সাংবাদিকদের মির্জা ফখরুল বলেন, ‘ম্যাডাম খালেদা জিয়াকে অসুস্থ অবস্থায় অন্যায়ভাবে জোর করে হাসপাতাল থেকে রিলিজ করে আদালতে হাজির করা হয়েছে। আমরা জানতে পেরেছি, পিজি হাসপাতালে যারা খালেদা জিয়ার মেডিকেলের দায়িত্বে ছিলেন, তারা তাকে ছাড়পত্র দেননি এবং তারা বলেছেন, “তিনি খুব অসুস্থ। এ অবস্থায় তাকে কারাগারে নিয়ে যাওয়া ঠিক নয়, তার চিকিৎসা চলছে”।’

তিনি বলেন, ‘খালেদা জিয়ার চিকিৎসার দায়িত্বে যারা ছিলেন, তারা ছাড়পত্র দিয়েছেন বলে আমরা জানি না। শুনেছি, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ যে কাউকে দিয়ে ছাড়পত্র লিখিয়ে নিয়েছে। এটা সম্পূর্ণভাবে আনইথিকেল কাজ।’

খালেদা জিয়া অত্যন্ত অসুস্থ জানিয়ে বিএনপি মহসচিব বলেন, ‘তাকে (খালেদা জিয়া) দেখেছি, তিনি অত্যন্ত অসুস্থ। হুইল চেয়ারে করে তাকে নিয়ে আসা হয়েছে। হুইল চেয়ারেও তিনি ঠিকমতো বসতে পারছেন না। আমরা আদালতের কাছে অনুমতি চেয়েও দেখা করার অনুমতি পাইনি।’