বাড়ি খেলাধুলা ক্রিকেট শ্বাসরুদ্ধকর টাই ম্যাচে খুলনাকে উড়িয়ে দিল চিটাগং

শ্বাসরুদ্ধকর টাই ম্যাচে খুলনাকে উড়িয়ে দিল চিটাগং

শ্বাসরুদ্ধকর চিটাগং-খুলনার ম্যাচ টাই হয় নির্ধারিত ২০ ওভারের খেলা। ম্যাচ গড়াই সুপার ওভারে। সুপারে ব্যাট করে ৬ বলে ১১ রান করতে সক্ষম হয় চিটাগং। ১১ রান করতে গিয়েও ১ উইকেট হারায় চিটাগং। খুলনার হয়ে বল করে জুনায়েদ খান। জবাবে খুলনা ১০ করে ১ রানে হেরে যায় খুলনা।

এর আগে নির্ধারিত ২০ ওভারের খুলনার দেয়া ১৫১ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরুটা ভালো হলনা। চিটাগং ভাইকিংসের। শুরুতে ওপেনিং ব্যাটসম্যান শাহজাদকে ফেরালেন জুনায়েদে খান। ১০ বলে ১০ রানে করে ফিরে যান শাহজাদ। শাহজাদের পর বেশি দূর আগাতে পারেননি ডেলপোর্ট। তাইজুলের বলে ১৬ বলে ১৭ রান করে আউট হন তিনি। তবে দুর্দান্ত খেলেন ইয়াছির আলি।

অবশ্য আক্ষেপ নিয়ে ফিরেছিন তিনি। মাত্র ৯ রানে জন্য মাইলফলকে পৌঁছাতে পারেননি তিনি। ৩৪ বলে ৪১ রান করেন তিনি। ২টি চার ও ২টি ছক্ক হাঁকান তিনি। শরিফুলে বলে আউট হন তিনি। এরপর সিকান্দার রাজাকে ফেরান ব্র্যাথওয়েট। ৪ বলে কোন রান করতে পারেননি তিনি।

৪ উইকেট হারিয়ে দল যখন বিপর্যয়ে তখন মোসাদ্দেককে দলের হল ধরেন অধিনায়ক মুশফিক। কিন্তু ১ চার মারতে পারলেও শরিফুলের স্লোয়ারে সরাসরি বোল্ট হল মোসাদ্দেক। তবে অন্য প্রান্তে ছয়-চার হাঁকতে থাকেন মুশফিক। কিন্তু ব্র্যাথওয়েটের বলে ছয় মারতে গিয়ে শরিফুলের হাতে ধরা পড়েন। ২৬ বলে ১ চার ও ২ ছয়ের সাহায্যে ৩৪ রান করে বিদায় নেন।

মুশফিক আউটে দলে বিজয় অনিশ্চিত হয়ে পড়ে। তবে নেমেই রানে চাকা সচল করেন ফ্রাইলিঙ্ক। অন্য প্রান্তে নাইম হাসান। ৫ বলে ৮ রান করেন তিনি। তবে ফ্রাইলিঙ্ক শেষ দিকে ঝড় তুলে দলে জয় এনে দিয়েছিলে প্রায়। কিন্তু ২০ ওভারের শেষ বলে ১ রান নিতে গিয়ে রান আউট হন ফ্রাইলিঙ্ক। ম্যাচ হয় টাই। এরপর ম্যাচ গড়াই সুপার ওভারে।

এর আগে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) শনিবার (১২ জানুয়ায়রি) দিনের প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হবে খুলনা টাইটান্স ও চিটাগং ভাইকিংস। শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় দুপুর ১টা ৩০ মিনিটে ম্যাচটি শুরু হয়। টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে চিটাগং ভাইকিংসের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম।

ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালোই করেছে দুই অধিনায়ক। ওপেনিং জুটিতে ৩১ রানে তোলে দুই ওপেনার। তবে দলীয় তৃতীয় ওভারে নাইম হাসানে বলে আবু জায়েদের হাতে ধরা পড়ে স্টার্লিং ফিরলে ওপেনিং জুটি ভাঙ্গে খুলনা। ১০ বলে ১৮ রান করেন তিনি। এরপর অন্য ওপেনার জুনায়েদ সিদ্দিকী ১৫ বলে ২০ রান করে ফ্রাইলিঙ্ককে বলে আউট হন।

জুনায়েদ আউট হলে ক্রিজে আসেন অধিনায়ক রিয়াদ। রিয়াদে সঙ্গে নিয়ে বড় স্কোর করে বিদায় নেন ডেভিড মালান। তিনি ৪৩ বলে ৪৫ রানে করে রাহির বলে আউট হন। এর পর ক্রিজে আসেন ব্র্যাথওয়েট তিনি এসেই ছক্কা হাঁকাতে শুরু করেন। তবে তাকে ফেরান সানজামুল। ৫ বলে ১২ রান করেন তিনি। তার পরে বলে শিকার হন অধিনায়ক রিয়াদ। ৩১ বলে ৩৩ রান করেন রিয়াদ।

এরপর খালেদের শিকার হন নাজমুল শান্ত। ৪ বলে ৬ রান করেন তিনি। মুহিদুল করেন ৪ বলে ৪ রান। আরিফুল করেন ৮ বলে ৯ রান। শেষ পর্যন্ত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৫১ রান করে খুলনা টাইটান্স।